২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ৭ আশ্বিন, ১৪২৮

তথ্য অধিকার আইন মানে না জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

বান্দরবান সংবাদদাতা

তথ্য অধিকার আইন মানে না বান্দরবান জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী। জানাযায়, চলতি বছরের জুন মাসের ৬তারিখ (রবিবার) সরকারী বিধি মোতাবেক তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ এর বিধিমালা বিধি ৩এর আলোকে নিয়ম অনুযায়ী তথ্য ফরমে বান্দরবান জেলার জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ২০১৮-১৯, ২০১৯-২০ ২০২০-২১ এ তিন অর্থবছরের বিভিন্ন উন্নয়ণ মূলক কর্মকান্ডের তথ্য চেয়ে আবেদন করা হয়। কিন্তু তথ্য চাওয়ার ২মাস পেরিয়ে গেলেও আইনের কোন তোয়াক্কা করছেন না জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী শর্মিষ্ঠা আচার্য্য।

বান্দরবানে কর্মরত মংসানু মারমা, মোঃ ইসহাক শৈহ্লাচিং মারমাসহ বিভিন্ন সাংবাদিকদের একই অভিযোগ। তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ এর আলোকে তথ্য ফরমে আবেদন করে তারা কেউই তথ্য নিতে পারেনা বান্দরবান জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী শর্মিষ্ঠা আচার্য্যর কাছ থেকে। কেন তথ্য চাওয়ার পরও তথ্য দেয়না জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর তা খতিয়ে দেখার আহবান জানান উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে।

তথ্য কখন দেয়া হবে জানতে চাইলে বান্দরবান জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী খোরশেদ আলম বলেন, সমস্ত তথ্য কম্পিউটারে সেভ করা আছে। যেকোন মূহুর্তে প্রিন্ট করে দিয়ে দেয়া যাবে।

২মাস পেরিয়ে যাবার পরও কোন তথ্য না দেওয়ার কারন জানতে চাইলে বান্দরবান জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী শর্মিষ্ঠা আচার্য্য বলেন, যাবতীয় তথ্য ইতিমধ্যে প্রিন্ট করে প্যাকেট করে রাখা হয়েছে। দু একদিনের মধ্যেই যে তথ্য চেয়েছে তার কাছে পৌঁছে যাবে।

চট্টগ্রাম বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মিজানুর রহমান বলেন, যদি তথ্য চাওয়ার পরও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর তথ্য না দেয়, তাহলে মনে করবেন কাজে কোন অনিয়ম হয়েছে। তাদেরকে অবশ্যই নিয়ম মোতাবেক তথ্য দিতে বাধ্য করবেন।

বিজ্ঞাপন

ট্যাগ :