২৯ নভেম্বর, ২০২১ | ১৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮

১৩ দিনে ৭ হাতির নৃশংস হত্যা

প্রকাশ : রবিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২১

হোসাইন সোহেল ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

আজ রবিবার (২১ নভেম্বর) আরো একটি হাতি হত্যা হলো। এই নিয়ে গত ১৩ দিনে ৭টি হাতির নৃশংস হত্যা করা হয়েছে৷ এই বিষয়ে বন বিভাগের কোন দৃশ্যমান পদক্ষেপ লক্ষ্য করা যায়নি।

কক্সবাজার চকরিয়ায় ফুলছড়ি রেঞ্জের উত্তর বনবিভাগে রাজঘাট বিট এলাকায় আরও একটি হাতি হত্যা করা হয়েছে। বনবিভাগ গোপন রাখতে চাইলেও শেষ পর্যন্ত সঠিক তথ্য ছবি হাতে এলো।

এলাকাবাসির বক্তব্য রাতে হাতিটিকে ক্যারেন্টের শক দেয়া হয়েছে। এরপর চিৎকার ব্যথা বেদনা নিয়ে দিশাহীন হয়ে এক পর্যায়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। সকাল হলে সবার নজরে আসে হাতিটির মৃতদেহ।

এর আগে ১. চট্রগ্রামে সাতকানিয়া ২. শেরপুরের শ্রীবর্দী ৩. চকোরিয়ার পূর্ণগ্রাম ৪. চট্রগ্রামে বাঁশখালি চাম্বল বিট ৫. কক্সবাজার চকোরিয়া হারবাঙ ৬. শেরপুরের পানিহাটা ৭. কক্সবাজার রাজঘাট বিট। এ নিয়ে গত তেরোদিনে ৬টি হাতি হত্যা করা হলো। যদিও আরও একটি হাতি গুম রয়েছে শেরপুরের শ্রীবর্দীতে যার কোন ট্রেস পাওয়া যাচ্ছেনা।

এরপরও বনবিভাগের পক্ষ থেকে কোন জবাবদিহিতা নেই। শুধু তাই নয় এসব হত্যাকান্ডের কোন মামলা বা গ্রেফতারও নেই। নেই কোন তদন্ত। কেন??

কয়েকজন কর্মকর্তা রয়েছেন তারা নিজেদের দায় এড়াতে সর্বদা ফেইসবুকে এসে হাতি হত্যার জন্য মায়া কান্না করছেন। ** অথচ জাতি জানতে চায় এসব হত্যাকান্ডের কারণ কি ?? বনবিভাগের দূর্বলতা কোথায়? কেন মুখে কুলুপ এটে রেখেছেন?

জবাব দিন হে মহান ব্যক্তিবর্গ***

মন্ত্রী ও উপমন্ত্রী, সচিব প্রধান বন সংরক্ষক আমির হোসেন চৌধুরী।

বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সার্কেলের প্রধান মোল্লা রেজাউল করিম, শেরপুরের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. রুহুল আমীন এবং চট্রগ্রামের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম (বন্যপ্রাণী সার্কেল)৷ এবং বন্যপ্রাণী ক্রাইম কন্ট্রোল ইউনিটের পরিচালক জহির আকন্দ।

আপনারা প্রেস কনফারেন্স করে জানান কেন হাতি বন্যপ্রাণী হত্যা হচ্ছে। হাতি কোন দপ্তর বা কারও বাবার সম্পদ নয়। হাতি আমাদের সম্পদ। এদেশের সম্পদ।

এই হত্যা বন্ধেও কি প্রধানমন্ত্রীকে নির্দেশ দিতে হবে? ফেসবুক লিংক

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=5101416183219761&id=100000542907092

বিজ্ঞাপন

ট্যাগ :